Joy Jugantor | online newspaper

জন্ম নয় পাপ!

ইসরাত জাহান সুগন্ধা

প্রকাশিত: ১৭:০৮, ২০ মার্চ ২০২১

জন্ম নয় পাপ!

ইসরাত জাহান সুগন্ধা

আমার মনে হয় লিঙ্গ বৈষম্যে সবচেয়ে বেশি জর্জরিত তৃতীয় লিঙ্গের মানুষগুলো। বঞ্চনা, অবহেলা, অবজ্ঞা তাদের দিনলিপির অংশ।

হিজড়া জনগোষ্ঠীর প্রতি এখন আমাদের সহমর্মিতা আসে। কারো কারো আসে ভয় ও বিরক্তি। কেন এমনটা হয় সেটা নিয়েই ভাবছিলাম। তারা আমাদের ট্রেনে, বাসে, সড়কে বিরক্ত করেন, বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলে দেন। আসলেই বিষয়গুলো একদমই মেনে নেওয়ার মতো নয়। কিন্তু একবারও কি ভেবে দেখেছি কেন তারা এমন আগ্রাসী বা বেপরোয়া আচরণ করেন? আমি, আপনি কি পারব রাস্তায় এরকম আচরণ করতে?

আমরা তো বন্ধুকে স্যরিও বলতে চাই না সবার সামনে। যথাসম্ভব চেষ্টা করি ঘরের বাইরে মানুষের সামনে নিজের ব্যক্তিত্বটাকে ফুটিয়ে তুলতে। কিন্তু এই মানুষগুলো কেন ব্যক্তিত্ব নিয়ে ভাবেন না?

এর পেছেনে কয়েকটা কারণ আছে। প্রথমত যখন আমার পেটে খাবার থাকবে না, তখন ব্যক্তিত্ব রক্ষা আমার কাছে কেবলই আকাশচুম্বি বিলাসিতা। দ্বিতীয়ত আমরা যেভাবে পারিবারিক শিক্ষা, সামাজিক মূল্যবোধ, স্কুল-কলেজে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার মধ্যে দিয়ে গেছি তারা অনেকেই সেভাবে জীবনটা এগিয়ে নেওয়ার সুযোগ পাননি। বাবা-মায়েরা শৈশবে আমাদের শেখান বড়দের শ্রদ্ধা করতে হয়, শুভেচ্ছা বিনিময় করতে হয়, অসহায়কে সাহায্যকে করতে হয়। কিন্তু তারা তো এই শিক্ষাটাও পান না। বরং পরিবার তাদের শেখায়- তোমার জন্মটাই ভুল, তোমার পরিচয় দিলে আমরা আত্মীয়-স্বজনরা মুখ দেখাতে পারব না, তুমি মানুষ নও।

একটা শিশু তখন অসংবেদনশীল হিসেবে বড় হবে এটাই তো স্বাভাবিক। এতকিছুর পরও আমরা আশা করি তারা আমাদের সাথে মিষ্টি করে কথা বলবে।

কিছু কিছু পরিবর্তন আশা জাগায়। এই যেমন এই নারী দিবসে একটি বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেলে পেশাদার সংবাদ পাঠক হিসেবে যুক্ত হয়েছেন তাসনুভা আনান শিশির নামে একজন রুপান্তরিত নারী।  শিশির বলছিলেন তার শৈশব কতটা তিক্ত ছিল। শুধু তাই নয়, পড়াশোনা করার পরও বৈষম্য তাকে রেহায় দেয়নি।

তিনি বলছিলেন, “যখন পড়াশোনা শেষ করে পুরোপুরি চাকরিতে ঢুকলাম, ভেবেছিলাম আর হয়ত বৈষম্য থাকবে না। কিন্তু তখন দেখলাম পুরোপুরি ভিন্ন এক চিত্র। নিজের সেরাটা দেওয়ার পরেও আমাকে যথাযথ মূল্যায়ন করা হতো না।”

তার মানে আমরা এখনো তাদের এ সমাজের একজন স্বাভাবিক মানুষ হিসেবে মেনে নিতে প্রস্তুত নই। এই ব্যর্থতা আমাদের। নিঃসন্দেহে কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে আমাদেরকেই।