Joy Jugantor | online newspaper

ফেব্রুয়ারি থেকে জ্বালানি তেল উত্তোলন বাড়ছে

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৩:৪১, ৭ জানুয়ারি ২০২২

ফেব্রুয়ারি থেকে জ্বালানি তেল উত্তোলন বাড়ছে

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে প্রতিদিন ৪ লাখ ব্যারেল করে জ্বালানি তেল উত্তোলন বাড়বে।

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে প্রতিদিন ৪ লাখ ব্যারেল করে জ্বালানি তেল উত্তোলন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। জ্বালানি তেল রপ্তানিকারক দেশসমূহ এবং এর মিত্র দেশগুলোর সংস্থা ওপেক প্লাসের নীতিনির্ধারণী বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

ধারণা করা হচ্ছে, এ পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক বাজারে তেল সরবরাহ বাড়াতে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর চাপ সৃষ্টি করবে। এছাড়া করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন নিয়ে নতুন বিধিনিষেধ আরোপে পিছু হটতে দেশটিকে বাধ্য করবে। 

অবশ্য চলতি বছরের শুরুর দিক থেকে তেল উত্তোলন বাড়ানোর পূর্বপরিকল্পনাই ছিল ওপেকভুক্ত এবং এর মিত্র দেশগুলোর। গত মঙ্গলবারের বৈঠকে সেই সিদ্ধান্তেই অনড় থাকে তারা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের প্রভাব ধীরে ধীরে কেটে যাবে। ফলে জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক চাহিদায় ভাটা পড়বে না। তাই তেল উত্তোলন বাড়ালে বিশ্ববাজারে কোনো ক্ষতি হবে না। বরং তেলের বাজার ঊর্ধ্বমুখী থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে ধীরে ধীরে জ্বালানি তেলের চাহিদা কমতে থাকে। ২০২০ সালের এপ্রিলে তা তলানিতে গিয়ে ঠেকে। তবে বাজারে সরবরাহ ছিল বেশি। ফলে দরপতন হয়। তাই তেল উত্তোলন কমিয়ে দেয় উৎপাদনকারী বিভিন্ন দেশ। 

২০২১ সালে করোনার প্রভাব কমতে থাকায় জ্বালানি তেলের চাহিদায় উল্লম্ফন দেখা যায়। ফলে আস্তে আস্তে উত্তোলন কমানোর সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে ওপেক ও ওপেক প্লাসভুক্ত দেশগুলো। ইংরেজি নতুন বছরের শুরু থেকে তেল উত্তোলন বাড়ানোর মনোস্থির করে তারা।

এ বছরের প্রথম কার্যদিবসে তেলের বাজারে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখা গেছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, এবার এই ধারা অব্যাহত থাকতে পারে। আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বাড়তে পারে। 

প্রসঙ্গত, ওপেক নিয়ন্ত্রণ করে সৌদি আরব। আর ওপেক প্লাস নিয়ন্ত্রণ করে রাশিয়া। যৌথভাবে বর্তমানে তেলের বাজার নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছে তারা। বিশ্বজুড়ে করোনা প্রতিরোধে ভ্যাকসিনের ওপর জোর দেয়ায় আশায় বুক বাঁধছে দুই জোটের দেশগুলো।