Joy Jugantor | online newspaper

পঞ্চগড়ে নৌকাডুবিতে ২৪ প্রাণহানি: তদন্ত কমিটি গঠন

পঞ্চগড় প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২২:০৫, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

পঞ্চগড়ে নৌকাডুবিতে ২৪ প্রাণহানি: তদন্ত কমিটি গঠন

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় নৌকাডুবিতে ২৪ জনের প্রাণহানি হয়েছে।

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় করতোয়া নদীতে নৌকাডুবিতে ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ১২ নারী, আট শিশু ও চারজন পুরুষ রয়েছেন। তাদের মধ্যে ঘটনাস্থলে ১৬ ও হাসপাতালে ৮ জন মারা গেছেন। নিহতদের নাম পরিচয় এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

মর্মান্তিক এই ঘটনায় অন্তত ৩০ জন বেশি নিখোঁজ রয়েছেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা বলছেন, নৌকাডুবির ঘটনায় লাশের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। তবে কতজন সাঁতরে নদী থেকে লোকালয়ে উঠে জীবন বাঁচাতে পেরেছেন আর কতজন নিখোঁজ রয়েছে তার সঠিক কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। নৌযাত্রীদের এমন মর্মান্তিক মৃত্যুতে শোকের মাতম চলছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার বড়শশী ইউনিয়নের বদেশ্বরী মন্দিরে (নদীর অপরপাড়ে) মহালয়া উপলক্ষে ধর্মসভার আয়োজন চলছে। সেখানে যোগ দিতে জেলার বোদা ও দেবীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের লোকজন শ্যালো ইঞ্জিনচালিত একটি নৌকাযোগে মন্দিরে যাচ্ছিলেন। নৌকায় প্রথম থেকেই অতিরিক্ত যাত্রী ছিল। ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করায়  নদীর মাঝখানে ডুবে যায় নৌকাটি। নৌকাটি কিছুদূর যাওয়ার পর দুলতে শুরু করলে মাঝি ফিরিয়ে আনার চেষ্টাও ব্যর্থ হন তিনি।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে বোদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোলেমান আলী জানান, নৌকা ডোবার পর সময় সাঁতার জানা যাত্রীদের অনেকে হয়তো তীরে উঠে এসেছেন। কিন্তু নারী ও শিশুরা অথৈ-ই পানিতে তলিয়ে যায়। ঘটনা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে সাহসী কিছু লোকজন ছুটে এসে অনেককে উদ্ধার করে। পরে জেলা, উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসন ও ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেওয়া হয়। খবর পেয়ে সবাই এসে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেন।

উদ্ধার অভিযানে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত ১৬ জনের লাশ পাওয়া গেছে। পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতাল ও বোদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালেও কিছু লাশ রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

বোদা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা রাজিউল করিম জানান, নৌকাডবির ঘটনায় উদ্ধার আটজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।  

পঞ্চগড় জেলা পুলিশ সুপার এস এম সিরাজুল হুদা সাংবাদিকদের জানান, নৌকা ডুবির ঘটনায় ২৪ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। অনুমান করা হচ্ছে আরো আট-দশ জন নিখোঁজ রয়েছেন। এখনও উদ্ধার অভিযান চলমান রয়েছে।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত প্রত্যেক পরিবারকে নগদ বিশ হাজার টাকা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক জহুরুল ইসলাম।  আহতদের প্রত্যেককে ১০ হাজার করে টাকা দেওয়া হবে।

নৌকাডুবির ঘটনায় পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট অথৈ আদিত্যকে আহ্বায়ক করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। সাত কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে কমিটিকে।  

জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে জানা গেছে ওই নৌকাতে অতিরিক্ত যাত্রী ছিল। কী কারণে এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে তা জানতে তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন হাতে পাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।