Joy Jugantor | online newspaper

উত্তাল বঙ্গোপসাগর, পর্যটকদের নিরাপদে থাকতে মাইকিং

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২০:৫৮, ১৪ আগস্ট ২০২২

উত্তাল বঙ্গোপসাগর, পর্যটকদের নিরাপদে থাকতে মাইকিং

সতর্কতা উপেক্ষা করেই সৈকতে আনন্দে মেতেছেন পর্যটকরা

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের প্রভাবে উত্তাল রয়েছে পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত। গত এক সপ্তাহ ধরে উপকূলীয় এলাকায় মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। বাতাসের চাপও অনেকটা বেড়েছে। নদ-নদী এবং সমুদ্রের পানির উচ্চতা ৩ থেকে ৪ ফুট বৃদ্ধি পেয়েছে। 

এদিকে সমুদ্রের তীরে আছড়ে পড়া বড় বড় ঢেউ উপেক্ষা করেই অনেক পর্যটককে সৈকতে গোসল করতে দেখা গেছে। এসব পর্যটকদের সৈকত থেকে সরে যেতে মাইকিং করতে দেখা গেছে ট্যুরিষ্ট পুলিশকে। 

আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় বায়ুচাপ পার্থক্যের আধিক্য বিরাজ করছে। সমুদ্র বন্দরসমূহ, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই পায়রা বন্দরসহ দেশের সব সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। 

তবে অনেক মৎস্য ব্যবসায়ীর দাবি, এখনো অনেক মাছ ধরা ট্রলার বৈরি আবহাওয়াকে উপেক্ষা করে গভীর সাগরে অবস্থান করছে।

ঢাকা থেকে কুয়াকাটায় বেড়াতে আসা পর্যটক আব্দুল্লাহ মুন্সী বলেন, ‘একদিকে বৃষ্টি অন্যদিকে সমুদ্রের ঢেউ। বন্ধুদের নিয়ে সৈকতে গোসলে নেমে বেশ আনন্দ করছি। তবে পুলিশ বারবার মাইকিং করায় বেশি দূরে যাচ্ছি না।’ 

অপর পর্যটক রেদোয়ান ইকবাল বলেন, ‘বৃষ্টির সঙ্গে সমুদ্রের বড় বড় ঢেউ দেখতে পাওয়ার অনুভূতি অন্য রকমের। এ আনন্দ ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না। কিন্তু সৈকত এলাকায় ট্যুরিষ্ট পুলিশের মাইকিং দেখে আমরা অনেকটা সতর্ক থেকেই গোসল সেরেছি।‘

কুয়াকাটা জোনের ট্যুরিস্ট পুলিশের পরিদর্শক হাসনাইন পারভেজ বলেন, ‘সমুদ্র উত্তাল, তাই পর্যটকদের নিরাপদে থাকাতে বারবার মাইকিং করা হচ্ছে। সৈকতের ঝুঁকিপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে আমাদের টিমের টহলে রয়েছে।’

জেলা আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহবুবা সুখী বলেন, ‘বৃষ্টিধারা অব্যাহত থাকতে পারে। বাতাসের চাপ আরও বাড়তে পারে। আবহাওয়ার এই অবস্থা আগামী তিনদিন পর্যন্ত অপরিবর্তিত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।’