Joy Jugantor | online newspaper

প্রেমের টানে নাটোরে চীনা যুবক, মুসলিম রীতিতে করলেন বিয়ে

নাটোর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৯:৪৬, ২৩ জুন ২০২৪

প্রেমের টানে নাটোরে চীনা যুবক, মুসলিম রীতিতে করলেন বিয়ে

ছবি সংগৃহীত

প্রায় ছয় মাস আগে নাটোরের ফাতেমা খাতুনের সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম উইচ্যাটে পরিচয় হয় চীনা নাগরিক লি সি জাংয়ের। পরিচয় থেকে প্রেমে রূপ নেয় সেই সম্পর্ক। গত বৃহস্পতিবার সেই যুবক নাটোরে এসে মুসলিম রীতিতে করেছেন বিয়ে। বিয়ের আগে গ্রহণ করেন ইসলাম ধর্ম। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে।

ফাতেমা নাটোর সদর উপজেলার লক্ষীপুর খোলাবাড়িয়া ইউনিয়নের বড়বাড়িয়া গ্রামের আবু তাহেরের মেয়ে ও নবাব সিরাজউদ্দৌলা কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্রী।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে নাটোর সদর উপজেলার লক্ষীপুর খোলাবাড়িয়া ইউনিয়নের বড়বাড়িয়া গ্রামে আসেন চীনা যুবক লি সি জাং। এরপর বৌদ্ধ ধর্ম পরিবর্তন করে ইসলাম গ্রহণ করে বিয়ে করেন ফাতেমাকে। এ সময় নিজের নাম পরিবর্তন করে রাখেন আলী।

ফাতেমা খাতুন বলেন, আমাকে ভালোবেসে লি সি জাং বাংলাদেশে এসেছে। সে আমার জন্য তার নিজের ধর্ম ত্যাগ করেছে। সুখ-দুঃখে আমরা একসঙ্গে থাকতে চাই। এ সময় ফাতেমা তার স্বামীর সঙ্গে চীনে চলে যাওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেন।

নিজেকে চিকিৎসক দাবি করে লি সি জাং ওরফে আলী বলেন, আমি ফাতেমাকে বিয়ে করতে পেরে খুশি। আমি আমার ভালোবাসার মানুষের জন্য ধর্ম পরিবর্তন করেছি। আশা করি আমরা সারাজীবন একসঙ্গে থাকতে পারব।

লক্ষীপুর খোলাবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান কালু বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সম্পর্কের পর তাদের বিয়ে হয়েছে জেনেছি। মেয়েটি শিক্ষিত, আগে থেকেই বিদেশি ভাষা শিখত। বিদেশ থেকে অনেকে এসে বাংলাদেশে বিয়ে করছে এ ঘটনা বিভিন্ন এলাকায় ঘটলেও আমাদের এলাকায় প্রথম। আমি দোয়া করি তাদের দাম্পত্য জীবন সুখের হোক।

ফাতেমার বাবা আবু তাহের বলেন, আমার মেয়ে বিদেশি পুরুষকে বিয়ের আগ্রহ প্রকাশ করায় স্থানীয়ভাবে বিয়ের প্রস্তাব আসলেও রাজি হয়নি। নিজের পছন্দ অনুযায়ী বিয়ে করতে চেয়েছে, তাই বৃহস্পতিবার ধর্মীয় বিধানে বিয়ে পড়ানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, লি সি জাং ওরফে আলী এবং ফাতেমার বিয়ের খবর ছড়িয়ে পড়লে তাদের দেখতে এলাকায় ভিড় করেন উৎসুক জনতা।