Joy Jugantor | online newspaper

২০২৬ বিশ্বকাপ ফুটবল বাছাইপর্বের ফরম্যাট প্রকাশ

ডেস্ক রির্পোট

প্রকাশিত: ০৩:০৩, ২১ মে ২০২৩

২০২৬ বিশ্বকাপ ফুটবল বাছাইপর্বের ফরম্যাট প্রকাশ

২০২৬ বিশ্বকাপ ফুটবল বাছাইপর্বের ফরম্যাট ঘোষনা করেছে কনফেডারেশন অব আফ্রিকান ফুটবল (সিএএফ)। বাছাইপর্বে ৫৪টি দেশ নয়টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে অংশ নিবে।

প্রতি গ্রুপের বিজয়ী দল প্রথমবারের মত আয়োজিত ৪৮ দলের বিশ্বকাপের মূল পর্বে অংশ নিবে। যৌথভাবে বৃহপরিসরে ২০২৬ বিশ্বকাপ  আয়োজন করবে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও মেক্সিকো। সর্বশেষ ২০২২ কাতার বিশ্বকাপে ৩২টি দেশ অংশ নিয়েছিল।

গ্রুপের সেরা চার রানার্স-আপ দল প্লে-অফে খেলার সুযোগ পাবে। আন্ত:কনফেডারেশন টুর্নামেন্টের প্লেÑঅফ থেকে দুটি দল বিশ্বকাপের মূল আসরে খেলার যোগ্যতা অর্জণ করবে।

আলজেরিয়ায় অনুষ্ঠিত সিএএফের নির্বাহী কমিটির বৈঠকের পর প্রকাশিত এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে আগামী ১২ জুলাইয়ে আফ্রিকার পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর বেনিনের কোটোনুতে বাছাইপর্বের ড্র অনুষ্ঠিত হবে।

চলতি বছরের ১৩-২১ নভেম্বর দুই পর্যায়ের ১০টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। এরপর আগামী বছর ৩-১১ জুন পরের ধাপ ও ২০২৫ সালের ১৭-২৫ মার্চ, ১-৯ সেপ্টেম্বর ও ৬-১৪ অক্টোবর বাছাইপর্ব শেষ হবে।

২০২৫ সালের ১০-১৮ নভেম্বর চার দলের প্লে-অফ অনুষ্ঠিত হবে। প্লে-অফের বিজয়ী দুটি দল উত্তর ও সেন্ট্রাল আমেরিকার দুটি ও এশিয়া, ওশেনিয়া ও দক্ষিণ আমেরিকার একটি করে দলের সাথে প্লে-অফের ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে।

কাতার বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলার মাধ্যমে প্রথম আফ্রিকান দেশ হিসেবে ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল মরক্কো। সেমিফাইনালে ফ্রান্সের কাছে ২-০ গোলে পরাজয়ের পর তৃতীয় স্থান নির্ধারীন ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার কাছে ২-১ গোলে হেরে যায় মরক্কো।

এদিকে সিএএফ ২০২৩ আফ্রিকান নেশন্স কাপের ড্রয়ের শেষ তারিখও ঘোষনা করেছে। আগামী বছর আইভরি কোস্টে অনুষ্ঠিতব্য আফ্রিকান নেশন্স কাপের বাছাইপর্ব ১২ অক্টোবর শেষ হচ্ছে। বাকি থাকা দুই রাউন্ডের ম্যাচ ১২-২০ জুন ও ৪-১২ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

স্বাগতিক হিসেবে সরাসরি মূল পর্বে খেলার সুযোগ পেয়েছে আইভরি কোস্ট। এছাড়াও বাছাইপর্ব উতরে গেছে আলজেরিয়া, বুরকিনা ফাসো, মরক্কো, সেনেগাল, দক্ষিণ আফ্রিকা ও তিউনিশিয়া। এখনো ১৭টি স্থান বাকি রয়েছে।

ক্লাব ফরম্যাটে সিএএফ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও কনফেডারেশন কাপের প্রাইজ মানি বৃদ্ধি করেছে। এই প্রতিযোগিতা দুটি উয়েফা ইউরোপা লিগের সমতূল্য। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের বিজয়ী দল চার মিলিয়ন ডলার (৩.৭ মিলিয়ন ইউরো) পকেটে পুরবে। গত বছর এর মূল্য ছিল আড়াই মিলিয়ন। রানার্স-আপ দল পাবে দুই মিলিয়ন, সেমিফাইনালিস্ট দলগুলো পাবে ১.২ মিলিয়ন ডলার করে। কনফেডারেশন কাপের বিজয়ী দল দুই মিলিয়ন ডলার অর্জন করবে। গত বছরের তুলনায় যা সাড়ে সাত লাখ ডলার বেশী। এই প্রতিযোগিতার রানার্স-আপ দল পাবে এক মিলিয়ন। সেমিফাইনালের চারটি দলের প্রত্যেকে পাবে সাড়ে সাত লাখ ডলার।

রেকর্ড ১০ বারের বিজয়ী মিশরীয় ক্লাব আল আহলি শুক্রবার দুই লেগের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে। ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকার মারমেলদি সানডাউন্স ও মরক্কোর ওয়াইদাদ ক্যাসাব্ল্যাঙ্কার মধ্যকার বিজয়ী দল।

এদিকে বুধবারের কনফেডারেশন কাপের ফাইনালে লড়বে তানজানিয়ার ইয়ং আফ্রিকানস ও আলজেরিয়ার ইউএসএম আলজার।