Joy Jugantor | online newspaper

স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়লেন লিটন

ডেস্ক রির্পোট

প্রকাশিত: ১৬:৩৬, ৫ আগস্ট ২০২২

স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়লেন লিটন

সংগৃহীত ছবি।

শুরুটা ছিল মন্থর। তবে সময় গড়ানোর সঙ্গে চওড়া হতে থাকে লিটন দাসের ব্যাট। হাফসেঞ্চুরি পূরণ করে সেঞ্চুরির দিকেও হেঁটে যাচ্ছিলেন। কিন্তু চোট বাধা হয়ে দাঁড়ালো! পায়ের পেশিতে টান লাগায় রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন এই ওপেনার।

আজ (শুক্রবার) হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে প্রথম ওয়ানডেতে নেমেছে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা সফরকারীদের স্কোর ৪৪ ওভারে ১ উইকেটে ২৫১ রান।

জিম্বাবুয়ের বিপেক্ষ দারুণ শুরু করেছিল তামিম ইকবাল ও লিটন দাস। দুজন মিলে ১১৯ রানের জুটি গড়েন। তামিমের আউটের পর এনামুল হককে সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছিলেন লিটন। কিন্তু ৩৪তম ওভারের প্রথম বলে দ্রুত সিঙ্গেল নিতে গিয়ে পেশিতে টান পড়ে তার। এরপর মাটিতে লুটিয়ে পড়লে, স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন লিটন।

ড্রেসিং রুমে ফেরার আগে এনামুলের সঙ্গে ৫০ বলে ৫২ রানের জুটি গড়েন লিটন। আর নিজে বাহারি সব শটে ৮৯ বলে করেছেন ৮১ রান। বিশেষ করে ৭৫ বলে হাফসেঞ্চুরি ছোঁয়ার পর থেকেই আক্রমণ বাড়াতে থাকেন।  হাফসেঞ্চুরির পর শেষ ১৪ বলে ৩১ রান তোলেন তিনি। এই চোটের কারণে হয়তো আরও একটি সেঞ্চুরি বঞ্চিত হবেন উইকেটকিপার ব্যাটার।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ওয়ানডেতে অন্য বাংলাদেশকে দেখা যাচ্ছে। ৫০ ওভারের ক্রিকেটে হয়েছে উঠেছে দুর্দান্ত এক দল। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডের ব্যাটিংয়েও দাপট দেখাচ্ছে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা। তামিম ইকবাল ও লিটন দাসের ব্যাটে শক্ত ভিত পায় সফরকারীরা। হাফসেঞ্চুরি পেয়েছেন দুই ওপেনারই। এর মধ্যে ফিফটি পূরণের পর আউট হয়ে গেছেন তামিম।

এই হারারেতে খেলা সবশেষ ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন তামিম ইকবাল। এক বছর পর সেখানে ফেরার উপলক্ষটা শতক দিয়ে রাঙিয়ে নেওয়ার সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন বাঁহাতি ওপেনার। তবে পারেননি। হাফসেঞ্চুরি করে বিদায় নিয়েছেন বাঁহাতি ওপেনার। তার আউটে বাংলাদেশ হারায় প্রথম উইকেট।

জিম্বাবুয়েকে প্রথম উইকেট এনে দিয়েছেন সিকান্দার রাজা। সফরকারী দুই ওপেনারের দাপটে কোণঠাসা হয়ে পড়েছিল স্বাগতিকরা। তামিম-লিটন ক্রিজে পড়ে থেকে একটু একটু করে বাড়িয়ে নিচ্ছিলেন রান। এর মধ্যে তামিম পেয়ে যান ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৫৪তম হাফসেঞ্চুরি। এগিয়ে যাচ্ছিলেন আরও সামনের দিকে। কিন্তু রাজার আঘাতে ফিরতে হয় প্যাভিলিয়নে। জিম্বাবুইয়েন স্পিনারের বলে ইনোসেন্ট কাইয়ার হাতে ধরা পড়েন তিনি। ফেরার আগে ৮৮ বলে ৯ বাউন্ডারিতে তামিম করেন ৬২ রান।

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), লিটন দাস, এনামুল হক, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান।

জিম্বাবুয়ে একাদশ: রেগিস চাকাভা (অধিনায়ক ও উইকেটকিপার), ইনোসেন্ট কাইয়া, ওয়েসলি মাদেভেরে, তারিসাই মুসাকান্দা, সিকান্দার রাজা, মিল্টন শুম্বা, রায়ান বার্ল, লুক জঙ্গোয়ে, ভিক্টর নিয়াউচি, রিচার্ড এনগারাভা, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা।