Joy Jugantor | online newspaper

বগুড়ায় ছাত্রলীগের নব-গঠিত কমিটির উপর হামলা, আহত ৭, ১৫ মোটরসাইকেল ভাঙচুর

আব্দুল আউয়াল

প্রকাশিত: ২২:৩১, ৩ ডিসেম্বর ২০২২

আপডেট: ১২:০৩, ৪ ডিসেম্বর ২০২২

বগুড়ায় ছাত্রলীগের নব-গঠিত কমিটির উপর হামলা, আহত ৭, ১৫ মোটরসাইকেল ভাঙচুর

ছবি- জয়যুগান্তর

বগুড়ার সরকারি আজিজুল হক কলেজে নবগঠিত ছাত্রলীগ কমিটির ওপর একই সংগঠনের বিদ্রোহীদের ‘হামলায়’ সাত নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় অন্তত ১৫ টি মোটরসাইকেলও ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে। 

শনিবার (৩ ডিসেম্বর) রাত ৯ টার দিকে কলেজ অধ্যক্ষের বাসভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে। 

আহতরা হলেন, সরকারি শাহ সুলতান কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকু রহমান আতিক, শহর ছাত্রলীগের সভাপতি মনিরুজ্জামান সাব্বির, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক নূর আলম, আজিজুল হক কলেজ ছাত্রলীগ নেতা রিমন রহমান।  

এ ছাড়া আরও তিনজন আহত হয়েছেন। তাদের নাম পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। 

আহতদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

বিদ্রোহীদের হামলায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের প্রায় ১৫ টি মোটরসাইকেল ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

ছাত্রলীগের নতুন কমিটির নেতাদের দাবি, জেলা ছাত্রলীগের বিদ্রোহী গ্রুপ এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। এ সময় ওই গ্রুপের ৫০ থেকে ৬০ জন সদস্য দেশীয় অস্ত্রসহ হামলা করেন। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার রাতে বগুড়া জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সজীব সাহা ও সাধারণ সম্পাদক আল-মাহিদুল জয়ের নেতৃত্বে ২০ থেকে ৩০ মোটরসাইকেলে ৫০ জন নেতাকর্মী আজিজুল হক কলেজের অধ্যক্ষর সাথে দেখা করতে যান। 

এর কিছুক্ষণ পরেই জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটির সহ-সভাপতি তৌহিদুর রহমান ও যুগ্ম সম্পাদক মাহাফুজারের নেতৃত্বে হামলার ঘটনা ঘটে বলে সংগঠনের নব-নির্বাচিত সভাপতি সজীব সাহা দাবি করেছেন। 

এই নেতা জানান,  তৌহিদ ও মাহাফুজারের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী নেক্কারজনকভাবে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমাদের উপর হামলা করেছেন। হামলায় আমাদের নেতাকর্মীর প্রায় ১৫ থেকে ২০ টি মোটরসাইকেল ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এছাড়াও আমাদের অন্তত ১০ জন নেতাকর্মী হাসপাতালে ভর্তি আছেন। আমরা এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেব। 

অভিযোগের বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাফুজার রহমান জানান, গত ২৬ নভেম্বর আমরা আজিজুল হক কলেজে ছাত্রদলকে প্রতিহত করি। আমাদের কাছে খবর ছিল ছাত্রদল ও শিবিরের নেতাকর্মীরা কলেজ ক্যাম্পাসে নাশকতার জন্য এসেছে। এজন্য আমরা কলেজে জয় বাংলা শ্লোগান দিয়ে প্রবেশ করলেই একটি দল আমাদের ওপর হামলা চালায়। তবে তারা কারা ছিল আমরা জানা নেই। আমরা শুধু প্রতিহত করেছি। 

সরকারি আজিজুল হক কলেজের অধ্যক্ষ শাহজাহান আলী জানান, ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদক আমার সাথে সাক্ষাৎ করতে আসলে দুর্বত্তরা বাহিরে হামলা চালায়। 

বগুড়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শরাফত ইসলাম জানান, সরকারি আজিজুল হক কলেজে একটি মারামারির ঘটনা ঘটেছে। আমাদের টিম সেখানে আছে। অভিযোগ সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।