Joy Jugantor | online newspaper

মোদি-মমতা বৈঠক বিকেলে

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৪:৩৫, ৫ আগস্ট ২০২২

মোদি-মমতা বৈঠক বিকেলে

মোদি-মমতা। ফাইল ছবি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দেখা করতে দিল্লি যাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার (৫ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে প্রধানমন্ত্রী সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি।

এরপর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার সময় রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গেও মমতার সাক্ষাতের কথা রয়েছে। মমতার সঙ্গে মোদি আলাদাভাবে সাক্ষাৎ করলে পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি নেতাকর্মীদের মনোবলে ধাক্কা খাবে বলে আশঙ্কা করছে দলটির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার ও বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী।

প্রধানমন্ত্রী যেন মমতার সঙ্গে দেখা না করেন তার দাবিও জানিয়েছেন এই দুই নেতা। খবর এনডিটিভির।  

এর আগেও দিল্লি এসে অনেকবারই প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে বৈঠক করেছেন মমতা। কংগ্রেস ও সিপিএম নেতারা অতীতে বহুবার অভিযোগ করেছেন, মোদি-মমতার রাজনৈতিক সমঝোতা নিয়ে। ব্রিগেডের জনসভা থেকে সিপিএম সারদা নিয়ে মোদি-মমতা সমঝোতার অভিযোগ করেছে।

কিন্তু অন্যবারের তুলনায় এবারের পরিস্থিতি পুরোপুরি আলাদা। রাজ্যে দুর্নীতিতে সিবিআই-ইডির তদন্ত চলছে। পার্থ-অর্পিতার একের পর এক সম্পত্তির হদিস পেয়েছে ইডি। বুধবারও তারা শান্তিনিকেতনে গিয়েছিল এরকমই কিছু বাড়িতে তল্লাশি চালাতে। অর্পিতার বাড়ি থেকে ৫০ কোটি টাকা ও প্রচুর গয়না উদ্ধার করেছে ইডি। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেফতার ও প্রচুর গয়নার হদিস মেলার পরিপ্রেক্ষিতে মোদি-মমতার আসন্ন বৈঠক তাৎপর্যপূর্ণ।

এসব কারণে একপ্রকার বিব্রতই তৃণমূল কংগ্রেসের নেত্রী। ইতোমধ্যে পার্থ-অর্পিতার বাড়িতে ইডির তল্লাশি ও সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ ও সম্পত্তির খোঁজ পাওয়ার পর তৃণমূল থেকে পার্থকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। তার মন্ত্রীপদও গেছে।

কিন্তু তারপরেও সিপিএম সাংসদ ও আইনজীবী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য অভিযোগ করেছেন, যা সামনে এসেছে, তা কিছুই নয়। কালীঘাটের বাড়িতে তল্লাশি না হলে আসল জায়গা বাদ থেকে যাবে। কংগ্রেসও মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছে।