Joy Jugantor | online newspaper

নাচের ভিডিও ভাইরাল, ফিনিশ প্রধানমন্ত্রীর মাদক পরীক্ষা

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৮:২৮, ১৯ আগস্ট ২০২২

নাচের ভিডিও ভাইরাল, ফিনিশ প্রধানমন্ত্রীর মাদক পরীক্ষা

সান্না মারিন

বন্ধু আর পপতারকাদের সঙ্গে পার্টিতে অংশ নিয়ে উদাম নাচগান করার ভিডিও ফাঁসের পর তুমুল সমালোচনার মুখে মাদক পরীক্ষা করালেন ফিনল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সান্না মারিন। শুক্রবার ফিনিশ এই প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নতুন ভিডিও প্রকাশিত হওয়ার পর তিনি মাদক পরীক্ষা করেছেন।

এর আগে, বন্ধু এবং ফিনিশ পপ তারকাদের সঙ্গে এক পার্টিতে অংশ নেন সান্না মারিন। সেই পার্টির একটি ভিডিও বৃহস্পতিবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে ছড়িয়ে পড়লে দেশজুড়ে প্রচণ্ড সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। ভিডিওতে বন্ধুদের সঙ্গে তাকে ব্যাপক নাচ এবং গান গাইতে দেখা যায়।

সমালোচনার জবাবে ৩৬ বছর বয়সী সান্না মারিন বলেন, ওই পার্টিতে কোনও ধরনের অবৈধ মাদক সেবন করেননি তিনি। তবে অ্যালকোহল নিয়েছেন তিনি। শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে মারিন বলেন, তিনি মাদক পরীক্ষা করেছেন। এই পরীক্ষার ফল আগামী সপ্তাহে পাওয়া যেতে পারে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

তিনি কখনও অবৈধ মাদক সেবন করেননি বলে দাবি করেছেন। হেলসিংকিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সান্না মারিন বলেন, আমি অবৈধ কোনও কিছুই করিনি। তিনি বলেন, এমনকি আমার কিশোরী বয়সেও আমি কোনও ধরনের মাদক সেবন করিনি। বিরোধীদের উদ্বেগ দূর করার জন্য তিনি মাদক পরীক্ষা করেছেন বলে জানিয়েছেন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বর থেকে ক্ষমতায় থাকা দেশটির এই প্রধানমন্ত্রী পার্টিতে থাকাকালীন সরকারি যেকোনও সিদ্ধান্ত নিতে সক্ষম ছিলেন কিনা; সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সান্না মারিন বলেন, স্টেট কাউন্সিল প্যালেসে যাওয়ার জন্য মাঝরাতে হঠাৎ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল বলে আমার একবারও মনে পড়ে না।

‘আমি মনে করি আমার কাজ করার ক্ষমতা সত্যিই ভালো ছিল। আমি যেদিন পার্টি করছিলাম সেই দিনে কোনও বৈঠক ছিল না।’

পার্টিতে ক্রমাগত ভিডিও ধারণ করা হয়েছিল বলে স্বীকার করেছেন সান্না মারিন। সেই ফুটেজ প্রকাশ্যে আসায় তিনি বিব্রত বলে জানিয়েছেন। তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি, অবসরের সময় এবং কাজের সময় আলাদা। আর লোকজন এটা বুঝতে পারবেন।

এদিকে, শুক্রবার সান্না মারিনের পার্টিতে নাচগানের নতুন আরেকটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে। এই ভিডিওতে ফিনিশ পপতারকা ওলাভি উসিভির্তার সঙ্গে ঘনিষ্টভাবে নাচতে দেখা যায় দেশটির প্রধানমন্ত্রীকে।

পপতারকা ওলাভি প্রধানমন্ত্রী মারিনের ঘাড়ে চুম্বন করেছেন বলে দেশটির একজন সাংবাদিক দাবি করেছেন। যদিও শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মারিন। তিনি বলেন, আমি মনে করি না যে, আমার ঘাড়ে চুম্বন করা হয়েছে। তবে আমাকে কিছু বলা হয়েছিল। আমি বন্ধুদের জড়িয়ে ধরে গালে চুমু দিয়েছি। যদি এটাকে বেমানান বলে বিবেচনা করা হয়, তাহলে আমার কিছুই করার নেই। 

‘যদি কেউ আমার গালে চুম্বন করে, তাহলে এতে বেমানান কিছু নেই। আর এটি এমন অযৌক্তিক কিছু নয়, যা আমার স্বামীকে বলতে পারবো না।’

সান্না মারিনকে ঘিরে দেশটিতে বিতর্ক নতুন কিছু নয়। কারণ তিনি প্রায়ই বিভিন্ন পার্টিতে যোগ দিয়ে সেখানে তোলা ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার করেন। এর আগে, গত বছর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক রোগীর ঘনিষ্ট সংস্পর্শে আসার পর ক্লাবে গিয়ে পার্টিতে যোগ দেন; যা নিয়ে সেই সময়ও দেশটিতে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়।

এদিকে, গত সপ্তাহে জার্মানির দৈনিক বিল্ড সান্না মারিনকে ‌‘বিশ্বের সবচেয়ে শান্ত প্রধানমন্ত্রী’ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে।

সূত্র: বিবিসি, রয়টার্স।