Joy Jugantor | online newspaper

পূর্ব ইউক্রেনে গুরুত্বপূর্ণ শহর দখলের দাবি রুশপন্থী বিচ্ছিন্নতাবা

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৮:৩১, ২৭ মে ২০২২

পূর্ব ইউক্রেনে গুরুত্বপূর্ণ শহর দখলের দাবি রুশপন্থী বিচ্ছিন্নতাবা

ফাইল ছবি ।

ইউক্রেনের রুশপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদীরা পূর্বাঞ্চলীয় গুরুত্বপূর্ণ শহর লিম্যান দখলের দাবি করেছে। শুক্রবার তারা এই দাবির কথা জানায়। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ইউক্রেনও হার মেনে নিয়েছে বলে দৃশ্যমান হচ্ছে। কয়েক সপ্তাহ ধরে রুশ সেনারা পূর্বাঞ্চলে অভিযান জোরদার করার পর এমন খবর জানা গেলো।

লিম্যান একটি গুরুত্বপূর্ণ রেলওয়ে কেন্দ্র। উত্তর থেকে রুশ সেনারা আক্রমণ জারি রাখায় এটি গুরুত্বপূর্ণ রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। যে তিনটি দিক থেকে ইউক্রেনের শিল্পাঞ্চলীয় ডনবাস অঞ্চলে আক্রমণ করছে সেগুলোর মধ্যে উত্তর হলো একটি দিক। রুশপন্থী ডনেস্ক পিপল’স রিপাবলিক বিচ্ছিন্নতাবাদীরা শহরটির পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার দাবি করেছে।

ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা ওলেক্সি আরেস্টোভিচ মধ্যরাতে এক সাক্ষাৎকারে লিম্যান শহরের পতন হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এই লড়াই প্রমাণ করেছে মস্কো নিজেদের কৌশল উন্নত করছে।

সোশাল মিডিয়ায় পোস্ট করা এক ভিডিওতে আরিস্টোভিচ বলেন, অসমর্থিত তথ্য অনুসারে আমরা লিম্যান শহরের নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছি। রুশ সেনাবাহিনী হয়ত নিশ্চিত করবে তারা এটি দখল করেছে। তারা এটি যেভাবে দখল করেছে, সঠিকভাবে অভিযান পরিচালনা করেছে। এটি দেখাচ্ছে যারা অভিযান ব্যবস্থাপনা ও কৌশলতগত দক্ষতার উন্নতি ঘটিয়েছে। সব জায়গায় রুশ সেনাদের উন্নতি হয়নি। তবে প্রশ্নাতীতভাবে বেড়েছে।

মার্চে রাজধানী কিয়েভ ও এই মাসের শুরুতে দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভ থেকে পিছু হটার পর রুশ সেনারা পূর্বাঞ্চলীয় ডনবাস অঞ্চলে নিজেদের শক্তি কেন্দ্রীভূত করে প্রয়োগ করছে।

পশ্চিমা সামরিক বিশ্লেষকরা বলছেন, এই যুদ্ধ নির্ণায়ক হতে পারে। আর নির্ভর করছে রুশ সেনারা তাদের অগ্রগতি বজায় রাখতে পারে কিনা অথবা তারা প্রেরণা হারাবে কিনা।

পূর্বাঞ্চলে রুশ সেনারা সিয়েভিয়েরোদনেস্ক ও লিসচানস্ক শহরে ইউক্রেনীয় সেনাদের ঘিরে ফেলার চেষ্টা করছে। গত সপ্তাহে দক্ষিণের শহর পপাসনায় ইউক্রেনীয় প্রতিরোধ ভেঙে ফেলার তারা এই দিকে এগোচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে আক্রমণ করে রাশিয়া। দেশটির দাবি, তারা ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান পরিচালনা করছে। তবে ইউক্রেন ও পশ্চিমারা এই আক্রমণকে উসকানি ছাড়াই আগ্রাসী যুদ্ধ হিসেবে দাবি করছে। চলমান যুদ্ধে রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ ও বেসামরিক হত্যার অভিযোগ এনেছে পশ্চিমারা। রাশিয়া এমন অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

Add