Joy Jugantor | online newspaper

গ্রাহকে ওয়ালটন প্লাজার কিস্তি মওকুফ, ২৫ হাজার টাকার সহায়তা

ডেস্ক রিপোর্ট 

প্রকাশিত: ১৭:২২, ২৩ জানুয়ারি ২০২৩

গ্রাহকে ওয়ালটন প্লাজার কিস্তি মওকুফ, ২৫ হাজার টাকার সহায়তা

নূরুন নাহারের হাতে ২৫ হাজার টাকার চেক তুলে দেওয়া হচ্ছে

সিলেটের জৈন্তাপুরের দরবস্ত ওয়ালটন প্লাজা থেকে কিস্তিতে একটি গ্যাস স্টোভ কিনেছিলেন গৃহিণী নূরুন নাহার। কিস্তির টাকা পরিশোধের আগেই মর্মান্তিক এক দুর্ঘটনায় সম্প্রতি তার দিনমজুর স্বামী মৃত্যুবরণ করেন। স্বামীর আকস্মিক মৃত্যুতে অকূল সাগরে পড়ে নূরুন নাহারের পরিবার। এর প্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানের ‘কিস্তি ক্রেতা ও পরিবার সুরক্ষা নীতি’ অনুযায়ী গ্রাহকের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে ওয়ালটন প্লাজা। কিস্তির পাওনা টাকা সম্পূর্ণ মওকুফের পাশাপাশি ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ নূরুন নাহারের হাতে তুলে দিয়েছে নগদ ২৫ হাজার টাকা।

মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি, ২০২৩) দরবস্ত ওয়ালটন প্লাজায় আনুষ্ঠানিকভাবে নূরুন নাহারের হাতে ২৫ হাজার টাকার চেক তুলে দেন ওয়ালটন কর্মকর্তারা। সে সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ফখরুল ইসলাম, ওয়ালটনের চিফ ডিভিশনাল অফিসার ইমরোজ হায়দার খান, ডিভিশনাল ক্রেডিট ম্যানেজার মাকসুদ আলম, সিলেট নর্থ জোনের রিজিওনাল সেলস ম্যানেজার সোহেল রানা, রিজিওনাল ক্রেডিট ম্যানেজার মন্তাজ আহমদ সাকিব, দরবস্ত ওয়ালটন প্লাজার ইনচার্জ ফয়েজ উদ্দিন ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ক্রেতাদের বাড়তি সুবিধা প্রদানের জন্য কিস্তি ক্রেতা ও পরিবার সুরক্ষা নীতি চালু করেছে শীর্ষ ইলেকট্রনিক্স ও প্রযুক্তিপণ্যের ব্র্যান্ড ওয়ালটন। কিস্তি ক্রেতা ও পরিবার সুরক্ষা নীতির আওতায় যেকোনো ওয়ালটন প্লাজা থেকে কিস্তিতে পণ্য ক্রয়কারীদের কিস্তি সুরক্ষা কার্ড দেওয়া হচ্ছে। এই নীতির আওতায় পণ্যমূল্যের ভিত্তিতে কিস্তি চলমান থাকা অবস্থায় ক্রেতার মৃত্যু হলে ৫০ হাজার থেকে ৩ লাখ এবং তার পরিবারের কোনো সদস্য মৃত্যুবরণ করলে ২৫ হাজার থেকে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত সহায়তা দিচ্ছে ওয়ালটন প্লাজা। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট পণ্যের অনাদায়ী কিস্তির টাকা সমন্বয়ের পর অবশিষ্ট টাকা ক্রেতা বা তার পরিবারকে দেওয়া হচ্ছে। নূরুন নাহারের কিস্তি ক্রেতা সুরক্ষা কার্ড নাম্বার ৭৩৯৩১৫৭০১৬৪৮৮৩৪৫।

জানা গেছে, ক্রেতা নূরুন নাহারের গ্রামের বাড়ি উপজেলার নিজপাট ইউনিয়নের গোয়াবাড়িতে। ৬ ডিসেম্বর, ২০২২ তারিখে দরবস্ত প্লাজা থেকে ওয়ালটনের গ্যাস স্টোভটি কেনেন তিনি। ২৫ ডিসেম্বর দুর্ঘটনায় মারা যান তার স্বামী আব্দুস সালাম। ৮ সদস্যের পরিবারে তার স্বামীই একমাত্র উপার্জনকারী ছিলেন। হঠাৎ করে স্বামীকে হারিয়ে অসহায় হয়ে পড়েন নূরুন নাহার। সংসারের চাকা হয়ে পড়ে অচল।

নূরুন নাহারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ওয়ালটন ক্রেতাদের এতসব সুবিধা দিচ্ছে তা তিনি জানতেন না। পণ্যের মান ভালো হওয়ায় এবং কিস্তি সুবিধা থাকায় ওয়ালটনের গ্যাস স্টোভ কেনেন তিনি। স্বামীর মৃত্যুর পর অভাবের সংসারে এই টাকা পেয়ে ওয়ালটনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান নূরুন নাহার। পাশাপাশি কিস্তির টাকা আর পরিশোধ করা লাগছে না জেনে স্বস্তির নিঃশ্বাস ছাড়েন তিনি। ওয়ালটন থেকে পাওয়া ওই সহায়তার টাকা সংসারের কাজে ব্যয় করবেন বলে জানান তিনি।

ওয়ালটন প্লাজার চিফ ডিভিশনাল অফিসার ইমরোজ হায়দার খান বলেন, ওয়ালটনের ‘কিস্তি ক্রেতা ও পরিবার সুরক্ষা নীতি’ ক্রেতাদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। এই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে কিস্তিতে পণ্য কেনায় ওয়ালটনের প্রতি ক্রেতাদের আস্থা আরও বেশি বাড়ছে। এই উদ্যোগের ফলে মৃত ক্রেতার পরিবারকে আর্থিকভাবে সহায়তা করতে পারছে ওয়ালটন। ইতোমধ্যেই অনেক গ্রাহকের পরিবার এই সুবিধা পেয়েছেন।