Joy Jugantor | online newspaper

এবার ডাব প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে মাঠে নামছেন হিরো আলম

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:১৪, ৩০ নভেম্বর ২০২৩

এবার ডাব প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে মাঠে নামছেন হিরো আলম

ছবি: জয়যুগান্তর।

অবশেষ জানা গেল আলোচিত ইউটিউবার আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম বাংলাদেশ কংগ্রেস থেকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন। বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে ভোটের মনোনয়ন জমা দেওয়ার কথা জানান হিলো আলম নিজেই। তবে তিনি বগুড়ায় উপস্থিত ছিলেন না।

বাংলাদেশ কংগ্রেস ছয়টি দলের সঙ্গে জোট করেছে। এই জোটের সঙ্গে থাকা অন্য দলগুলো হলো গণঅধিকার পার্টি (পিআরপি), বাংলাদেশ বেকার সমাজ (বাবেস), বাংলাদেশ পিপলস পার্টি, বাংলাদেশ গ্রীণ পার্টি ও বাংলাদেশ সৎ সংগ্রামী ভোটার পার্টি। তাদের মধ্যে হিরো আলম গণঅধিকার পার্টির (পিআরপি) মনোনীত প্রার্থী।

হিরো আলমের ব্যক্তিগত সহকারী সুজন রহমান শুভ বগুড়া জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল ইসলামের কাছে আজ বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) বিকেল চারটার দিকে মনোনয়ন জমা দেন।

হিরো আলম জানান, আমি সাধারণত দুটি আসন থেকে নির্বাচন করি। এবারও আমার দুটি আসনে ভোট করার টার্গেট ছিল। ভবিষ্যতে আমাদের ৩০০ আসন থেকে নির্বাচন করার পরিকল্পনা আছে। জনগণের ভালোবাসা পাওয়ার কারণে আমি এমন সিদ্ধান্ত নিতে চাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, 'আজকে আপনারা সবাই জানেন আমি বাংলাদেশ কংগ্রেস থেকে নির্বাচন করতে চাচ্ছি। আমি শুনেছি নির্বাচন কমিশন মনোনয়ন জমা দেওয়ার জন্য আরও তিনদিন সময় বাড়াবেন। যদি সময় বাড়ায় তাহলে আমি কুমিল্লা-১০ আসন থেকে ভোট করতে চাই। ওই এলাকায় আমার ভক্তরা আমাকে চায়। তারা খুব আগ্রহী। নিজেদের ডাল-ভাত খেয়ে আমার পক্ষে নির্বাচন করতে চায়।'

এর আগে গতকাল দুপুরে বগুড়া নির্বাচন অফিস থেকে বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির প্রার্থী হয়ে মনোনয়ন তোলেন। তবে জমা দিলেন গণঅধিকার পার্টি থেকে নেওয়া মনোনয়ন।  

চলতি বছরে জুলাই মাসে ঢাকা-১৭ আসনে হিরো আলম স্বতন্ত্র পা্রর্থী হিসেবে নির্বাচন করেন। এর আগে গত ফেব্রুয়ারি মাসে বগুড়া-৬ (সদর) ও বগুড়া ৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে উপনির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করেন তিনি।

২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচনেও বগুড়া ৪ আসনে নির্বাচনে অংশ নেন হিরো আলম। তবে ভোটের মাঝপথে এসে অনিয়মের অভিযোগ তুলে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বগুড়া সদরের এরুলিয়া গ্রামের বাসিন্দা হিরো আলম শৈশবে চানাচুর বিক্রি করতেন। পরে তিনি সিডি বিক্রি এবং ডিশ সংযোগের ব্যবসা করেন। নিজেই মিউজিক ভিডিও তৈরি করে ডিশ লাইনে সম্প্রচার শুরু করেন।

ইউটিউবে প্রায় ৫০০ মিউজিক ভিডিও ছাড়ার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও গণমাধ্যমে আলোচনায় আসেন হিরো আলম। এভাবে হিরো আলমের তৈরি মিউজিক ভিডিও এবং ইউটিউব সিনেমা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে আলোচনায় আসেন। ভিডিওগুলোর মূল চরিত্রেও নিজে অভিনয় করেন হিরো আলম।