Joy Jugantor | online newspaper

খুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থানান্তরের দাবি

গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি 

প্রকাশিত: ২০:২৯, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

খুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থানান্তরের দাবি

ছবি- জয়যুগান্তর।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কাটাবাড়ী ইউনিয়নের আদমপুর মিশনে খুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থানান্তরের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। উপজেলার ৬ ইউনিয়নের পারগানা পরিষদের আয়োজনে সোমবার সকাল সাড়ে ১১টা থেকে ঘন্টাব্যাপী গোবিন্দগঞ্জ-দিনাজপুর আঞ্চলিক সড়কের বাগদাবাজার এলাকায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা শতাধিক নারী-পুরুষ এ কর্মসূচিতে অংশ নেন।

চরণ মুরমুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, গনেশ মুরমু, লিবিও হাসদা, পরেশ টুডু, বিশ্বনাথ সরেণ, রাফায়েল বাসকে, উইলশন সরেণ, ময়রা হেমব্রম, মঙ্গল মার্ডি, ও মাইকেল মার্ডি। এতে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন, কাটাবাড়ী স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ লায়ন ছামিউল আলম রাসু। 

বক্তারা বলেন, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামদিয়া, রাজাহার, শাখাহার, সাপমারা, গুমানীগঞ্জ ও কাটাবাড়ী ইউনিয়নে খুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী বসবাস করে আসছে। কিন্তু খুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর সুবিধার কথা না ভেবে গুটি কয়েক লোকের কথামত স্থানীয় প্রশাসন কাটাবাড়ী ইউনিয়নের আদমপুর মিশনে খুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করতে যাচ্ছেন। সেখানে পাকা রাস্তা না থাকায় বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা লোকজনের যাতাযাতে অসুবিধায় পড়তে হয়। ফলে বাগদা এলাকায় সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটিরাস্তা সংলগ্ন নির্মাণ করলে সকলেরই সুবিধা হয়। পাশাপাশি যে কমিটি গঠন করা হয়েছে তা নিয়েও রয়েছে নানা অভিযোগ।বক্তারা প্রশাসনের প্রতিস্বচ্ছতার ভিত্তিতে সকলের সম্মতিক্রমে আলোচনা সাপেক্ষে কমিটি গঠনের দাবি জানান।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ হোসেন জানান, কাটাবাড়ী ইউনিয়নের আদমপুর মিশনে খুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক কেন্দ্রপূর্ব থেকেই ছিল। যা ছিল জরাজীর্ণ মাটির দেয়ালের ঘর।বিষয়টি ডিসি মহোদয়ের নজরে আসলে তিনি নিজ উদ্যোগে সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটিনির্মাণের প্রতিশ্রুতি দেন।

এরই প্রেক্ষিতে সেখানে তাদের জন্য সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটি নির্মাণের জন্য গত ৩০ জুলাইডিসি মহোদয় নিজে থেকে উদ্বোধন করেন। গাইবান্ধার গণ উন্নয়ন কেন্দ্রের সহযোগিতায় কাজটি হবে। তবে সরকারিভাবে খুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক কেন্দ্রনির্মাণের আবেদন করা হয়েছে। সেটি হলে তাদের সুবিধা মতই সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটিনির্মাণ করা হবে। বিষয়টি তাদেরকে ডেকে বুঝিয়ে বলা হয়েছে।তারা হয়তো না বুঝে এসব করছেন।