Joy Jugantor | online newspaper

বগুড়া জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক 

প্রকাশিত: ১৮:৩৭, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

আপডেট: ১৮:৩৯, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

বগুড়া জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ সম্পন্ন

বগুড়া জেলা পরিষদ নির্বাচনে সোমবার প্রার্থীদের হাতে প্রতীক তুলে দেন জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউল হক।

বগুড়া জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টায় নির্বাচন রিটার্নিং কর্মকর্তা জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউল হক প্রার্থী ও তাদের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে প্রতীক বরাদ্দ দেন।

চেয়ারম্যান পদে দুই প্রার্থী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ডা: মকবুল হোসেন পেয়েছেন (আনারস প্রতীক) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মান্নান আকন্দ পেয়েছেন (মোটর সাইকেল প্রতীক)। 

ডা: মকবুল হোসেন উপস্থিত থেকে প্রতীক নেন এবং আব্দুল মান্নান আকন্দ কারাগারে থাকায় তার পক্ষে সহধর্মিনী মোছা. মনোয়ারা বেগম প্রতীক নেন। চেয়ারম্যান প্রার্থী ছাড়াও ১২টি ওয়ার্ডে ৩২ জন সাধারণ সদস্য ও চার ওয়ার্ডে ১৫ জন সংরক্ষিত সদস্যের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়।

১ নম্বর ওয়র্ডে  (সংরক্ষিত মহিলা) তিন জন প্রার্থীর মধ্যে মাহফুজা খানম লিপি পেয়েছেন (হরিণ প্রতীক), সাহেরা বেগম পেয়েছেন (ফুটবল প্রতীক), রুলী বেগম পেয়েছেন (দোয়ত কলম প্রতীক)। ২নম্বর ওয়ার্ডে (সদর) রুহুল কুদ্দুস সাহেদ পেয়েছেন (উটপাখি প্রতীক), মাফুজুল ইসলাম রাজ পেয়েছেন (টিউবওয়েল প্রতীক), আবু জাফর মাহমুদন্নবী রাসেল পেয়েছেন (অটোরিক্সা প্রতীক) এবং সৈয়দ সার্জিল আহমেদ টিপু পেয়েছেন (তালা প্রতীক)। ৩ নম্বর ওয়ার্ডের (কাহালু)- এস এম রুহুল মোমিন তারিক পেয়েছেন (টিউবওয়েল প্রতীক) এবং নাসরিন রহমান সীমা পেয়েছেন (তালা প্রতীক)। ৪ নম্বর ওয়ার্ডে (দুপচাঁচিয়া)- আবু সাইদ ফকির (বিনা প্রতিদ্বন্দ¦ীতায় নির্বাচিত), ৫ নম্বর ওয়ার্ডে (আদমদিঘী) মঞ্জু আরা বেগম (বিনা প্রতিদ্বন্দ¦ীতায় নির্বাচিত)। ৬ নম্বর ওয়ার্ডে (নন্দীগ্রাম)-রাশেদুল ইসলাম পেয়েছেন (তালা প্রতীক), মুকুল মিয়া পেয়েছেন (অটোরিক্সা প্রতীক), এবং মোস্তারীন সরকার পেয়েছেন (টিউবওয়েল প্রতীক)। ৭ নম্বর ওয়ার্ডে (শাজাহানপুর)- রুবেল সরকার পেয়েছেন (অটোরিক্সা), আছাদুর রহমান দুলু পেয়েছেন (তালা প্রতীক) এবং তালেবুল ইসলাম পেয়েছেন (টিউবওয়েল প্রতীক)। ৮ নম্বর ওয়ার্ডে (শেরপুর)-শিল্পী বেগম পেয়েছেন (তালা প্রতীক), মোস্তাফিজার রহমান পেয়েছেন (হাতি প্রতীক) এবং মানিক উদ্দিন পেয়েছেন (টিউবওয়েল প্রতীক)। ৯ নম্বর ওয়ার্ডে (ধুনট)-সুজাউদ্দৌলা পেয়েছেন (টিউবওয়েল প্রতীক), ফজলুল হক পেয়েছেন (তালা প্রতীক)। ১০ নম্বর ওয়ার্ডে (গাবতলী)- ফয়সাল খান পেয়েছেন  (টিউবওয়েল প্রতীক) এবং আব্দুল্লাহেল বাকী পেয়েছেন (হাতি প্রতীক)। ১১ নম্বর ওয়ার্ডে (সারিয়াকান্দি)- রাকিবুল হাসান পেয়েছেন (টিউবয়েল প্রতীক), আব্দুল খালেক দুলু পেয়েছেন (হাতি প্রতীক), আব্দুর রশিদ ফারাজী পেয়েছেন (উটপাখি প্রতীক) এবং ফরিদুর রহমান পেয়েছেন (তালা প্রতীক)। ১২ নম্বর ওয়ার্ডে (সোনাতলা)-জুলফিকার রহমান শান্ত পেয়েছেন (টিউবয়েল প্রতীক), আব্দুল মালেক পেয়েছেন (হাতি প্রতীক), এবং আবুল হাসান মো: আশরাফুদৌলা পেয়েছেন (উটপাখি প্রতীক)।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার মো. মাহমুদ হাসান, উপজেলা নির্বাচন অফিসার এ এস এম জাকির হোসেন।

উল্লেখ্য, বগুড়া জেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে ইলেকট্রিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)। নির্বাচনে ভোটারসংখ্যা ১ হাজার ৬২৫। এর মধ্যে দু‘জন মৃতু বরণ করেছেন। ভোটারদের মধ্যে আছেন উপজেলা পরিষদের ১২ জন চেয়ারম্যান, ২৪ ভাইস চেয়ারম্যান, বগুড়ার ১২ পৌরসভার ১২ মেয়র, ১৬০ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর, ১০৯ ইউপি চেয়ারম্যান এবং ১ হাজার ৩০৮ জন সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ড সদস্য।