Joy Jugantor | online newspaper

গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচন

গণসংযোগে নির্বাচন প্রত্যাশী নাহিদুজ্জামান নিশাদ 

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৮:৪৫, ১৩ আগস্ট ২০২২

আপডেট: ০৮:০৪, ১৪ আগস্ট ২০২২

গণসংযোগে নির্বাচন প্রত্যাশী নাহিদুজ্জামান নিশাদ 

উপজেলার জুমারবাড়ী এলাকায় এই গণসংযোগ করেন নাহিদুজ্জামান নিশাদ।

গাইবান্ধা-৫ সাঘাটা-ফুলছড়ি আসনে উপনির্বাচন উপলক্ষে গণসংযোগ করেছেন নির্বাচন প্রার্থীতা প্রত্যাশী আলহাজ্ব নাহিদুজ্জামান নিশাদ। শনিবার বিকেলে সাঘাটা উপজেলার জুমারবাড়ী এলাকায় এই গণসংযোগ করেন তিনি। এ সময় জনসাধারণের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন নাহিদুজ্জামান নিশাদ। 

নাহিদুজ্জামান নিশাদ গাইবান্ধার সাঘাটার বগারভিটার বাসিন্দা। বর্তমানে তিনি বগুড়া শহরের সেউজগাড়ীতে বসবাস করেন। উত্তরবঙ্গের সনামধন্য ব্যবসায়ী ও সংগঠক হিসেবে সুপরিচিত নাহিদুজ্জামান নিশাদ। পাশাপাশি দৈনিক জয়যুগান্তর নামে বহুল প্রচারিত পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক তিনি। এ ছাড়া একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন নাহিদ।

গণসংযোগের শুরুতে সাঘাটার বগারভিটা নিজ গ্রামের বাড়ি এলাকার মানুষদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করা হয়। এ সময় গ্রামের বয়োজ্যেষ্ঠদের কাছে গিয়ে কুশলাদি জানতে চান নাহিদুজ্জামান নিশাদ। পরে সেখান থেকে ক্যাম্পেইন দল নিয়ে জুমারবাড়ী বাজারে উপস্থিত হন তিনি।

এ সময় বাজারের সব ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পরিচিত হন। সৌজন্যসাক্ষাতের পাশাপাশি ব্যবসায়ীদের কাছে বিভিন্ন সমস্যার বিষয়ে খোঁজখবর করেন নিশাদ। গণসংযোগের এক পর্যায়ে স্থানীয় মসজিদে মাগরিবের নামাজ আদায় করেন তিনি।

নামাজ শেষে মুসল্লীদের মাঝে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন মনোয়ন প্রত্যাশী নাহিদুজ্জামান। এরপর আবার গণসংযোগে বের হন তিনি। 

নির্বাচনের প্রার্থীতা প্রত্যাশী নাহিদুজ্জামান নিশাদ জানান, নিজ গ্রামের বাড়ি সাঘাটার প্রতি টান তার ছোটবেলা থেকেই। সবসময় গ্রামের বাড়ি এলাকা ও এখানকার মানুষের মানোন্নয়নে সচেষ্ট ছিলেন। এই লক্ষ্যে যখনই সুযোগ পেয়েছেন সাঘাটার জুমারবাড়ী এলাকার উন্নয়নের নিজেকে সম্পৃক্ত করেছেন। 

তিনি বলেন, মরহুম ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়ার মৃত্যুতে দেশের ক্ষতি অপূরণীয়। সাঘাটা-ফুলবাড়ী এলাকায় আমি নতুন করে সাজাতে চাই। এখানকার মানুষদের জীবন মান উন্নয়নে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখতে চাই। এ জন্য সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন এলাকাবাসীর সহযোগীতা ও দোয়া।

জুমার বাড়ী বাজারে গণসংযোগকালে উপস্থিত ছিলেন এলাকার মাসুম মাস্টার, প্রফেসর মিজানুর রহমান, এনামুল হক তারিক মাস্টার,  সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ,  মতিয়ার রহমান মাস্টার,  সাইফুল্লাহ মন্ডল, মাহাবুর রহমান মাস্টার,  আমান উল্লাহ মন্ডল,  ডা. জয়নাল,  আরিফুর রহমান,  শফিউল্লাহ শ্যামল, রোকন মন্ডল,  আমিরুল ইসলাম সহ প্রমুখ।

গাইবান্ধা-৫ সংসদীয় আসনটির সংসদ সদস্য ছিলেন ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া। গত ২২ জুলাই নিউইয়র্কের স্থানীয় সময় বিকাল ৪টায় মাউন্ট সিনাই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। এই সংসদ সদস্য দুরারোগ্য ক্যানসারে আক্রান্ত ছিলেন। পরে ২৩ জুলাই তার মৃত্যুর দিন থেকেই আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে।  

২৪ জুলাই জাতীয় সংসদ সচিবালয় থেকে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। সংবিধান অনুযায়ী কোন সংসদীয় আসন শূন্য ঘোষিত হলে ৯০ দিনের মধ্যে উপনির্বাচন করতে হবে। সেই অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন পরবর্তী পদক্ষেপ নিবে।