Joy Jugantor | online newspaper

বগুড়ায় সখ্যতা গড়ে অশ্লীল ভিডিও, হাতিয়ে নিতেন লাখ লাখ টাকা!

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২১:১০, ২৯ জুন ২০২২

আপডেট: ২২:২৭, ২৯ জুন ২০২২

বগুড়ায় সখ্যতা গড়ে অশ্লীল ভিডিও, হাতিয়ে নিতেন লাখ লাখ টাকা!

গ্রেফতার চারজন।

বগুড়ায় বিত্তশালীদের সাথে সখ্যতা গড়ে অশ্লীল ভিডিও ধারণের পর টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩ টার দিকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) সদর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়।

এ সময় চক্রটির ৩ নারীসহ ৪ সদস্যকে নগদ ৫ লাখ টাকাসহ  গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতার চারজন হলেন, শিবগঞ্জ উপজেলার সংসারদীঘির সোহরাফ আলীর ছেলে নাছির উদ্দিন (৩৬), একই উপজেলার নিশ্চিন্তপুরের মৃত আলমগীর হোসেন ওরফে আলমের স্ত্রী রুনা আক্তার (৪২), সদরের পূর্ব পালশার ফরহাদ শেখের স্ত্রী আমেনা খাতুন ওরফে রেশমী (৪০) ও গাবতলীর মহিষাবান সাতঘড়িপাড়ার আব্দুল লতিফের স্ত্রী সেলিনা আক্তার ঝিনুক ওরফে ঝিনুক মালা(৩৭)।

ডিবি পুলিশ তাদের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, গ্রেফতার চারজন একটি সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য। তারা সমাজের বিত্তশালী ও প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিদের টার্গের করেন। বিভিন্ন ভাবে তাদের চক্রের সাথে নারী সদস্যরা সখ্যতা গড়ে তোলেন। এরপর বাসায় ডেকে অশ্লীল ছবি ও ভিডিও তুলে ব্ল্যাকমেইল করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। এমনকি যারা টাকা দিতে অস্বীকার করতেন তাদের প্রাণনাশের হুমকিও দেওয়া হয়। 

ডিবি পুলিশ আরও জানায়, মনিরুল ইসলাম (ছদ্মনাম) নামে অবসরপ্রাপ্ত এক সরকারি কর্মকর্তাকে তারা ফাঁদে ফেলেন। কৌশলে তাকে জিম্মি করে  চক্রের সদস্যরা প্রায় ২১ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন। গত ১৬ মার্চ থেকে গত ৬ জুন পর্যন্ত কয়েক দফায় তার কাছ থেকে টাকা আদায় করে এই চক্র।পরে জিম্মিদশা থেকে মুক্ত হতে তিনি গতকাল মঙ্গলবার বগুড়া সদর থানায় মামলা করেন। মামলায় এই চারজনকেই আসামি করা হয়।

বগুড়া ডিবি পুলিশের ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) সাইহান ওলিউল্লাহ জানান, সরকারি কর্মকর্তার মামলার প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু হয়। একপর্যায়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নিশ্চিত হয়ে চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

তিনি আরও জানান গ্রেফতার নাছির আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়ে জবানবন্দি দিয়েছেন। এছাড়াও রুনার বিরুদ্ধে এরআগেও মানবপাচারের মামলা আছে।