Joy Jugantor | online newspaper

গোবিন্দগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম বেড়েছে

গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি 

প্রকাশিত: ২১:১১, ১৭ জানুয়ারি ২০২২

গোবিন্দগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম বেড়েছে

গোবিন্দগঞ্জের গ্রামাঞ্চলে মাদকের ভয়াবহতা বেড়েছে।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলসহ বেশকিছু এলাকায় মাদকের ভয়াবহতা বেড়েই চলেছে। স্থানীয়ভাবে অভিযোগ রয়েছে, প্রশাসনের উদাসীনতার কারণে পুরাতন নামধারীদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে অনেক নতুন মাদক ব্যবসায়ীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার কামদিয়া ইউনিয়নের কামদিয়া বাজার ও দিঘিরহাট, শাখাহার ইউনিয়নে রাজাবিরাট, রাজাহার ইউনিয়নের পানিতলাহাট, সাপমারা ইউনিয়নের খামারপাড়া, বৈরাগীরহাট, তরফকামাল, সাহেবগঞ্জ, কাটামোড়, চক রহিমাপুর, দরবস্ত ইউনিয়নের কালিতলা, হরিতলা বাজার, পোড়াদহ বাজার, কোমপুর, কামারদহ ইউনিয়নের ফাসিতলা বাজার, বকচর, গুমানীগঞ্জের পারগয়ড়া, কালীতলা বাজার, নেংরা বাজার, কাটাবাড়ী ইউনিয়ের বাগদা বাজার ও পৌর শহরের থানা সংলগ্ন পশ্চিম চৌমাথা, পুরাতন বন্দর, কুঠিবাড়ী, পৌর বটতলী, হীরকমোড়, হাসপাতালমোড়, পান্থাপাড়া, খলসি ও রেজিস্ট্রি অফিস সংলগ্ন এলাকাসহ  বিভিন্নস্থানে প্রকাশ্যে চলছে রমরমা মাদক বেচা-কেনা। 

পুরাতন নামধারী মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে যুক্ত হয়েছে নতুন মাদক ব্যবসায়ীরা। প্রতিদিন শতশত মাদকসেবী, দূর-দূরান্ত থেকে বাইকে ছুটছেন। গোবিন্দগঞ্জ- দিনাজপুর আঞ্চলিক সড়কের, কাটামোড়, কামারপাড়া, কাইয়াগঞ্জ, খলসি বটতলী, রাজাবিরাট, পানিতলা, মাদকসেবীরা দাপিয়ে বেড়ায়। সকাল, বিকেল, রাতে বাইকে করে মাদকসেবীরা ছুটছেন এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে। মাদক ব্যবসায়ীসহ মাদকসেবীদের হাতে নির্যাতনের স্বীকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। প্রতিনিয়ত চুরি, ছিনতাই এমন কি খুনের ঘটনাও বাড়ছে। মাদকের বিরুদ্ধে প্রশাসনের কেন এমন উদাসীনতা? এনিয়ে সচেতন মহলে চলছে নানা আলোচনা- সমালোচনা। 

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন পুলিশ সদস্য জানান, উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের কারণে মাদক প্রতিরোধের অভিযান কমেছে। যে কোনো মাদক আটক করলে কর্মকর্তারা মনে করেন পরিমাণ কম দেখাে না হয়েছে। তাদের এমন সন্দেহের কারণে মাদকের অভিযানে কেউ যেতে আগ্রহবোধ করেন না। আবার এসব অভিযানের ক্ষেত্রে সোর্সিং খরচ প্রয়োজন। এসব খরচ না পেলে কাজ করা কষ্টকর হয়ে ওঠে। 

উপজেলার বিভিন্ন এলাকার একাধিক যুবকরা জানান, সংশ্লষ্টি প্রশাসনের সদিচ্ছাই পারে মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে যুব সমাজকে রক্ষা করতে। কিন্তু প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েই সবসময় প্রশ্ন দেখা দেয়। এ ছাড়াও অভিভাবকদের সচেতনতা গুরুত্বপূর্ন।  

এ বিষয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি মো. ইজার উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে বলেন, ‘কোথায় মাদক বেচা-কেনা হচ্ছে আমাদের তথ্য দেন। আমরা ব্যবস্থা নিবো।’

গাইবান্ধা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপপরিদর্শক শাকিলার রহমান বলেন, ‘প্রতিনিয়তই আমাদের অভিযান চলছে এবং চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে। মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে রক্ষা পেতে, আপনারা আমাদের সহযোগিতা করবেন আশা করছি।’
 

Add