Joy Jugantor | online newspaper

বগুড়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় ছুরিকাঘাতে হাসপাতালে ৩, আটক ২

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০১:১৭, ২৩ নভেম্বর ২০২১

আপডেট: ০৮:৪৮, ২৩ নভেম্বর ২০২১

বগুড়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় ছুরিকাঘাতে হাসপাতালে ৩, আটক ২

প্রতীকী ছবি।

বগুড়ার শাজাহানপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় দুই ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্য প্রার্থীর  কর্মী-সমর্থকদের সংঘর্ষে সাতজন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ দুজনকে আটক করেছে। 

সোমবার রাত পৌনে আটটার দিকে উপজেলার খরনা ইউনিয়নের বাঁশবাড়িয়া সাকিদারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে তিনজন বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। তাদেরকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করা হয়। এ তিনজনই খরনা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মোরগ প্রতীকে ইউপি সদস্য প্রার্থী আফজাল হোসেন ফকিরের কর্মী-সমর্থক। এছাড়াও তার আরো দুইজন কর্মী-সমর্থক আহত হন। তবে তাদের হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়নি।

অন্য আহত দুজন হলেন আফজালের প্রতিদ্বন্দ্বী আবদুল সালামের কর্মী-সমর্থক। তিনি (সালাম) ফুটবল প্রতীকে ইউপি সদস্য প্রার্থী। এই দুজনকেই আটক করেছে পুলিশ। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাদেরকে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী আফজালের মেয়ে জামাই শফিকুল ইসলাম।

তিনি জানান, বাঁশবাড়িয়া সাকিদারপাড়া গ্রামে আফজালের নির্বাচনী অফিস রয়েছে। সেখানে আফজাল তার কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে আলোচনা করছিলেন।  ঐ সময় ফুটবল প্রতীকের লোকজন ধারালো অস্ত্রসহ লাঠিসোটা নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়। এবং মারধর করা শুরু করে। একপর্যায়ে আফজাল নিজেকে বাঁচাতে একজনের বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেন। 

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ইউপি সদস্য প্রার্থী আফজাল হোসেন ও আব্দুস সালামের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

জানতে চাইলে শাজাহানপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ আলী জানান, সংঘর্ষের  পর দুজনকে আটক করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে কয়েকজন শজিমেক হাসাপাতালে ভর্তি রয়েছেন।