Joy Jugantor | online newspaper

বগুড়ায় বাল্যবিবাহ মানতে না পেরে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:৫৭, ১১ অক্টোবর ২০২১

আপডেট: ১৮:০৪, ১১ অক্টোবর ২০২১

বগুড়ায় বাল্যবিবাহ মানতে না পেরে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

প্রতীকী ছবি।

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে বাল্যবিবাহ দেওয়ায় অভিমানে দশম শ্রেণির ছাত্রী সম্পা আক্তার (১৫) আত্মহত্যা করেছে। আজ সোমবার ভোরে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

সম্পা ওই গ্রামের আবুল মন্ডলের মেয়ে ও সারিয়াকান্দি সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের এসএসসি পরিক্ষার্থী ছিলেন।

জানা যায়, গতকাল রোববার সন্ধ্যায় সম্পা তার বাবার বাড়ি সারিয়াকান্দি উপজেলার নারচি ইউনিয়নের কুপতলা গ্রামে বিষপান করেন। পরে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে শজিমেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। 

পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, প্রায় দেড় মাস আগে সম্পাকে তার পরিবার ইচ্ছের বিরুদ্ধে পাশের গাবতলী উপজেলার গোড়দাহ গ্রামের শাহীনের সাথে বিয়ে দেয় তার পরিবার। শাহীন পেশায় একজন গার্মেন্টস কর্মী। তিনি গাজীপুরে চাকুরি করেন। বিয়ের পর শাহীন তার স্ত্রীকে গ্রামের বাড়ি গাবতলীতে রেখে চাকুরিস্থলে চলে যান । কয়েকদিন আগে সম্পা তার বাবার বাড়িতে আসেন এবং তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে বিয়ে দেওয়ার প্রতিবাদ করেন। এজন্য পরিবারের পক্ষ থেকে তাকে কড়াশাসন করা হয়। এই নিয়ে অভিমানে সম্পা গতকাল সন্ধ্যায় বিষপান করেন। 

সারিয়াকান্দি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহাবুব হাসান জানান, সোমবার দুপুরের পরে শজিমেক হাসপাতালে সম্পার ময়নাতদন্ত সম্পূর্ণ হয়েছে। তবে এখনও তার লাশ সারিয়াকান্দিতে আসেনি। আইনগত সব প্রক্রিয়া মেনে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে।