Joy Jugantor | online newspaper

হয়তো লোকে আমাকে পাগল বলবে: মিরাজ

ডেস্ক রির্পোট

প্রকাশিত: ১৮:১০, ৫ ডিসেম্বর ২০২২

হয়তো লোকে আমাকে পাগল বলবে: মিরাজ

ফাইল ছবি।

গতকাল মিরপুরে রবীবাসরীয় জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। ভারতের মতো শক্ত প্রতিপক্ষকে রীতিমতো নাকানি চুবানি খাইয়েছে। মেহেদী হাসান মিরাজ ও মোস্তাফিজুর রহমানের ব্যাটিং দৃঢ়তায় ২৪ বল হাতে রেখেই জয় পেয়েছে টাইগাররা।

‘হয়তো লোকে আমাকে পাগল বলবে। তবু আমি সবসময় বিশ্বাস করি যে, আমরা জিততে পারি,’ এ কথা ম্যাচ জেতানো মেহেদী হাসান মিরাজের। বাংলাদেশের এই অলরাউন্ডার দাঁতে দাঁত চেপে চুইংগামের মতো সেঁটে থাকলেন উইকেটে। 

ভারতীয় ফিল্ডাররা ঘিরে ধরলেন তাকে। তাদের দরকার ছিল শেষ উইকেট। অপর প্রান্তে ১১ নম্বরে ব্যাট করা মোস্তাফিজুর রহমান। বাংলাদেশের প্রয়োজন ৫১ রান। মাত্র আট রানে শেষ পাঁচ উইকেট পড়েছে স্বাগতিকদের। মিরপুরের অনেক দর্শক তখন বাড়ির পথ ধরেছেন। ভারত জয়ের সুরভি পাচ্ছে। কিন্তু মিরাজের মাথায় তখন অন্য চিন্তা। এ বছর এমন কোণঠাসা পরিস্থিতি থেকে তিনি বাংলাদেশকে জিতিয়েছেন একাধিকবার। রোববারও তার ব্যত্যয় হয়নি।

১৮৭ তাড়া করতে নেমে বাংলাদেশ তখন ঘোর বিপদে। শেষ স্বীকৃত ব্যাটার আফিফ হোসেন যখন বিদায় নিয়েছেন, স্বাগতিকদের দরকার ৫৩ রান। ইবাদত হোসেন ও হাসান মাহমুদ শূন্য রানে ফিরে যাওয়ার পরও মিরাজের বিশ্বাস টলেনি। ২৪ বল ও এক উইকেট হাতে রেখে বাংলাদেশ প্রথম ওডিআইতে ভারতকে হারিয়েছে মিরাজের ব্যাটিংয়ে। 

জয়সূচক বাউন্ডারি এসেছে তার ব্যাট থেকেই। ম্যাচসেরা এই অলরাউন্ডার পরে বলেন, ‘হয়তো লোকে আমাকে পাগল বলবে। কিন্তু সত্যি আমার এই বিশ্বাস ছিল যে, আমরা জিততে পারি। আমি শুধু ম্যাচ জেতার ওপর ফোকাস করেছি। নিজেকে বারবার বলেছি, আমি পারব। ভেবেছিলাম আমি ইবাদতের সঙ্গে ১৫, হাসান মাহমুদের সঙ্গে ২০ এবং বাকি ১৫-২০ রান মোস্তাফিজকে সঙ্গে নিয়ে করে ফেলব। কিন্তু দ্রুত দুই উইকেট হারানোয় আমাকে ঝুঁকি নিতেই হতো। মোস্তাফিজের কথায় আমি আস্থা পাই। সে আমাকে বলে, ‘চিন্তা কোরো না। আমি আউট হব না।’ 

দুজনে শেষ উইকেটে ৫১ রানের অত্যাশ্চর্য জুটি গড়ে বাংলাদেশকে ১-০তে এগিয়ে দেন তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে।