Joy Jugantor | online newspaper

‘বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তার আদর্শকে হত্যা করতে পারেনি’

ডেস্ক রিপোর্ট 

প্রকাশিত: ১৫:১৫, ১৫ আগস্ট ২০২২

‘বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তার আদর্শকে হত্যা করতে পারেনি’

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি- ফাইল ফটো

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত শক্তিই বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করেছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলে নির্মম এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নেওয়া হবে। আজ থেকে ৪৭ বছর আগে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হলেও তার আদর্শকে হত্যা করতে পারেনি।

সোমবার সকালে রংপুরের পীরগাছা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর পুরো জীবনটাই সংগ্রামের। ভারত-পাকিস্তান যেদিন ভাগ হয়েছিল, সেদিনই বঙ্গবন্ধু বুঝতে পেরেছিলেন, পাকিস্তান বাঙালিদের জন্য নয়। আমাদের প্রয়োজন একটি স্বাধীন রাষ্ট্র্র। বঙ্গবন্ধু জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়গুলো জেলে কাটিয়েছেন, দেশ স্বাধীন করেছেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল দেশের মানুষদের অর্থনৈতিক মুক্তি। সে কাজটি করতে পারেননি তিনি। আজ তারই কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন। দীর্ঘ ২১ বছর দেশ পরিচালনার দায়িত্ব নিয়ে উন্নতি করছেন। দেশ আজ শক্তিশালী অর্থনীতির ওপর দাঁড়িয়ে আছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান। বিশ্ববাসী বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রশংসা করছে।

টিপু মুনশি আরও বলেন, সারাবিশ্বে এখন অর্থনৈতিক অস্থিরতা চলছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও পণ্যের দাম বেড়েছে। আমরা বৈশ্বিক পরিস্থিতির শিকার। ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে তেল, গ্যাস, চাল, ইত্যাদির মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। এ পরিস্থতির সুযোগ নিয়ে একটি মহল ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে। সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। সাশ্রয়ী হয়ে আমাদের পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে। আশা করা যায় আগামী ২ থেকে ৩ মাসের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসবে।

অনুষ্ঠানে পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ শামসুল আরেফীনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু নাছের শাহ মো. মাহবুবুর রহমান, রংপুরের সহকারী পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল আলম, পীরগাছা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. তছলিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ মিলন প্রমুখ।