Joy Jugantor | online newspaper

বাংলাদেশে বিনিয়োগে সৌদি আরবের আগ্রহ

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৪:৪৭, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১

বাংলাদেশে বিনিয়োগে সৌদি আরবের আগ্রহ

ছবি সংগৃহীত

বিজনেস টু বিজনেস (বিটুবি) অথবা বিজনেস টু গভর্নমেন্ট (বিটুজি) মডেলে বাংলাদেশে সৌদি পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড-পিআইএফ থেকে বিনিয়োগ করা যেতে পারে বলে আশা প্রকাশ করেছেন সৌদি পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের ডেপুটি গভর্নর ইয়াজিদ আল হামিদ।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) রিয়াদের বাংলাদেশ দূতাবাস এ তথ্য জানায়।

সৌদি আরব সফররত প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) দেশটির পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের ডেপুটি গভর্নরের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।  এসময় ডেপুটি গভর্নর এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

বৈঠকে সালমান এফ রহমান ঢাকা-পায়রা বন্দর রেলপথ নির্মাণে সৌদি আরবকে অর্থায়নের অনুরোধ করেন।

এসময় সৌদি আরব বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় খাতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী বলে জানান সৌদি পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের ডেপুটি গভর্নর।

তিনি বলেন, বিজনেস টু বিজনেস (বিটুবি) অথবা বিজনেস টু গভর্নমেন্ট (বিটুজি) মডেলে বাংলাদেশে সৌদি পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড-পিআইএফ থেকে বিনিয়োগ করা যেতে পারে।

তিনি ২০১৬ সাল থেকে পরিবর্তিত নতুন ব্যবস্থাপনা ও উদ্দেশ্য অর্জনে পিআইএফ এর পরিচালনা পদ্ধতি ও পরিকল্পনা বিষয়ে ধারণা দেন।

উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগের মডেল বর্ণনা করে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর গতিশীল নেতৃত্ব ও যুগোপযোগী চিন্তাধারায় বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সংস্কার হয়েছে।  বাংলাদেশ আজ বিদেশি বিনিয়োগের একটি আদর্শ স্থান বলে বিবেচিত হচ্ছে।

তিনি বৈঠকে বাংলাদেশের বিভিন্ন মেগা প্রকল্পগুলো বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেন এবং সৌদি বিনিয়োগ প্রত্যাশা করেন। কোনো প্রকল্পকে ব্যবসায়িকভাবে লাভজনক করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী গৃহীত ভায়াবিলিটি গ্যাপ ফান্ডিং (ভিজিএফ) এর উল্লেখ করে উপদেষ্টা বলেন, এটি একটি নতুন চিন্তাধারা যা বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগকে লাভজনক ও নিরাপদ করবে। 

তিনি ঢাকা-পায়রা বন্দর রেলপথ নির্মাণে সৌদি পিআইএফ থেকে অর্থায়নের অনুরোধ করলে ডেপুটি গভর্নর জানান, বাংলাদেশ থেকে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক অনুরোধ পেলে অবশ্যই বিবেচনা করা হবে।

উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান পিআইএফ এর ডেপুটি গভর্নরকে বলেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী কোনো সৌদি কোম্পানি অগ্রাধিকারমূলক সহায়তা চাইলে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হবে।

সৌদি পাবলিক ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড হলো সৌদি আরবের সার্বভৌম সম্পদ তহবিল, যার আনুমানিক সম্পদের পরিমাণ প্রায় ৪৫০ বিলিয়ন ডলার যা ২০২৫ সাল নাগাদ এক ট্রিলিয়ন ডলারে উন্নীত হওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছে। এ ফান্ড থেকে স্থানীয়ভাবে এবং আন্তর্জাতিকভাবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রকল্পে বিনিয়োগ করা হয়ে থাকে। পিআইএফ সৌদি আরবের ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়নে বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করে থাকে।  এ ফান্ড থেকে সেবা খাত, নবায়নযোগ্য জ্বালানি, বিমান ও প্রতিরক্ষা, যানবাহন, পরিবহন, খনিজ ও খনি, আর্থিক সেবা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ, মিডিয়া এবং প্রযুক্তি, খাদ্য ও কৃষি এবং অন্যান্যসহ মোট ১৩টি কৌশলগত খাতে বিনিয়োগ করা হয়ে থাকে।

বৈঠকে সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী উপস্থিত ছিলেন।  এছাড়া বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলের সদস্য বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) এর নির্বাহী চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ সরকারি-বেসরকারি অংশিদারীত্ব কর্তৃপক্ষ (পিপিপিএ) এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সুলতানা আফরোজ ও দূতাবাসের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।